মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১০:১০ অপরাহ্ন

আসপিয়া প্রকৃতপক্ষে ভূমিহীন নয়, মিলল চাঞ্চল্যকর তথ্য

প্রকাশিতঃ সোমবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১:১৯ অপরাহ্ন

বরিশাল জে’লার হিজলা উপজে’লার বাসিন্দা আসপিয়া ইস’লাম কাজলের নিজস্ব জমি না থাকলেও প্রকৃতপক্ষে ভূমিহীন নয়। ভোলার চরফ্যাসন উপজে’লার আমিনাবাদ ইউনিয়নের হালিমাবাদ গ্রামে আসপিয়ার রয়েছে পূর্ব পুরুষের জমি ও স্থায়ী ঠিকানা। সরেজমিনে অনুসন্ধানকালে আসপিয়ার চাচা মোশারেফ হোসেনের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য মিলেছে।

 

অনুসন্ধানে জানা যায়, উপজে’লার আমিনাবাদ ইউনিয়নের হালিমাবাদ গ্রামের মুগবুল আহমেদ মাতাব্বরের বাড়িটি আসপিয়া ইস’লাম কাজলের দাদার বাড়ি। তার দাদার ছয় ছে’লে এবং দুই মে’য়ের মধ্যে আসপিয়ার বাবা শফিকুল ইস’লাম ছাড়া বাকিরা এখনো জীবিত আছেন। ২০১৯ সালে আসপিয়ার বাবা শফিকুল ইস’লাম মা’রা যান। ওই বাড়িতে আসপিয়ার চাচা ও চাচাতো ভাই’রা এখনও বাসবাস করছেন।

 

আসপিয়ার চাচা মোশারাফ হোসেন জানান, ১৯৯০ সালের আগে আসপিয়ার বাবা শফিকুল ইস’লাম চরফ্যাসন থেকে বরিশালের হিজলা উপজে’লায় চলে যান। বড় ভাই আমির হোসেন তখন হিজলা উপজে’লা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিসে প্রকৌশলী পদে কর্ম’রত ছিলেন। শফিকুল ইস’লাম তখন বড় ভাই আমির হোসেনের সঙ্গে হিজলা যান। ১৯৯০ সালে সেখানে ঝর্না বেগম নামে এক ভদ্রমহিলাকে বিয়ে করেন।

 

পরবর্তীতে বড় ভাই আমির হোসেন বদলী হয়ে পিরোজপুর চলে গেলে ছোট ভাই শফিকুল ইস’লাম স্থানীয় ব্যক্তিমালিকানাধীন একটি ফার্মে চাকরি নিয়ে স্ত্রী’-সন্তানসহ হিজলা উপজে’লার বড় জালিয়া ইউনিয়নের খু’ন্না গবিন্দপুর গ্রামে ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করেন। মৃ’ত্যুর আগ পর্যন্ত স্ত্রী’-সন্তানসহ নিয়ে সেখানেই অবস্থান করছিলেন আসপিয়ার বাবা শফিকুল ইস’লাম। তার মৃ’ত্যুর পর চরফ্যাসনে তার নিজ বাড়ীতে তাকে দাফন করা হয়। এবং আসপিয়ার পরিবারের লোকজন এখনও তার পূর্ব পুরুষের এই ঠিকানায় আসা-যাওয়ার মধ্যে আছেন।

 

মোশারফ হোসেন আরও জানান, আসপিয়ার বাবা শফিকুল ইস’লাম অংশ হারে বসত বাড়িতে ১০ শতাংশ ও নাল জমিতে ৬৪ শতাংশ জমির মালিক আছেন। আসপিয়া জানান, হিজলা উপজে’লা প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তার পরিবারের জন্য জমি ও ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ঘর নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: