রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১১:১৩ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ায় বন্যায় সুপারশপের পণ্য লুটের অভিযোগে ৭ বাংলাদেশি গ্রেফতার

প্রকাশিতঃ বুধবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২১, ১০:১২ পূর্বাহ্ন

গত ৪ দিন আগে মালয়েশিয়ায় হয়ে গেল স্মর’ণকালের সবচেয়ে ভ’য়া’বহ ব’ন্যা। এতে বিপুল পরিমাণ ক্ষ’য়ক্ষ’তিসহ সারাদেশে মা’রা গেছে অন্তত ১৪ জন। টানা ২৪ ঘন্টার বৃষ্টির পানিতে দেশটির ১৩টি রাজ্যের মধ্যে ৯টি রাজ্যেই বন্যায় প্লাবিত হয়। এসময় বন্যার পানি দেশটির শাহআলম নামক এলাকার অন্যতম চেইন সুপারশপ মাইডিন এ ঢুকে পড়ে। বুক সমান পানিতে সুপারশপের পন্য ভেসে যায়।

 

এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে একদল মানুষ এই মা’ইডিন এর মালামাল লু’ট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দে’হে বাংলাদেশি ৭ জন প্রবাসীসহ বিভিন্ন দেশের ৩১ জন অভিবাসীকে গ্রে’ফতার করেছে দেশটির পুলিশ। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন বিভাগের ভেরিফা’য়েড ফেইসবুকে এক বিবৃ’তিতে এসব কথা বলা হয়েছে। আট’ককৃতদের মধ্যে বাংলাদেশের ৭ জন, ইন্দোনেশিয়ার ১০ জন, নেপালের ৯ জন ও মায়ানমারের ৫ জন অভিবাসী রয়েছে।

 

শাহ আলম জেলা পুলিশের প্রধান সহকারী কমিশনার বাহারুদ্দিন মাত তৈয়ব জানান, জেলা পুলিশ সদর দফতরের অপরা’ধ তদন্ত বিভাগ (আইপিডি) তাদেরকে গ্রে’ফতার করেছে। এক বিবৃ’তিতে তিনি বলেন, “দ’ণ্ডবি’ধির ৪৫৭ ধারা অনুযায়ী মাম’লাটি তদ’ন্ত করা হবে।” তবে আট’ককৃতদের দা’বি, টানা ২৪ ঘন্টার বৃষ্টিতে চারদিকে বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। তাদের খাবার ফুরিয়ে গিয়েছিল এবং বন্যার কারণে আশেপাশে খাবারের দোকান বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তাই তারা খাবারের জন্য মাইডিনে ছুটে গিয়েছিল।

 

মাইদিন মোহাম্মদ হোল্ডিংস বেরহাদ (মাইদিন), দাতুক উইরা-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. আমির আলী মাইদিন বলেছেন, তারা বেঁচে থাকার অজুহাতে এই কাজ করেছে। পুলিশ সত’র্ক করে দিয়ে বলেছে কোন প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় চু’রি বা লু’টতরাজ করার কোন সুযোগ নেই। যদি এই ধরণের কর্মকা’ণ্ড কেউ করে থাকে তাহলে দেশের প্রচলিত আইনে বি’চার করা হবে।

 

এর আগে, এই ঘটনার সমন্বিত একটি ১১ সেকে’ন্ডের ভি’ডিও ক্লি’প সোশ্যাল মিডিয়ায় পো’স্ট ভা’ইরাল হয়েছিল। তবে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন এই ঘটনা এমন ব্য’ক্তিদের দ্বারা সংঘ’টিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে যারা মা’রাত্ম’ক বন্যার কারণে খাদ্য সরবরাহ শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে বেশ কয়েকটি দোকানে প্রবেশ করতে বা’ধ্য হয়েছিল।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: