মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন

দাদাবাড়ির হাঁস-রুটি-পিঠা খাওয়া হলো না ৯ বছরের নুসরাতের

প্রকাশিতঃ শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৩৮ অপরাহ্ন

বাবা-মায়ের সঙ্গে রাজধানী ঢাকায় থাকত ৯ বছরের নুসরাত জাহান। বেশ কিছুদিন ধরেই আবদার করেছিল দাদাবাড়িতে যাবে। শীতে দাদাবাড়িতে হাঁস-রুটি-পিঠা খাওয়ার আবদার করছিল সে। কিন্তু তা আর হলো না। গত বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) মে’য়ে নুসরাতকে নিয়ে অ’ভিযান-১০ লঞ্চে উঠেন মা রাজিয়া সুলতানা। রাত ৩ টার দিকে লঞ্চে আ’গুন লাগে। আ’গুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে নুসরাতের ইচ্ছা।

 

নুসরাত ও তার মা আ’গুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে কিনা এ নিয়ে সংশয়ে তাদের পরিবার। অ’ভিযান-১০ লঞ্চে আ’গুন লাগার খবর ছড়িয়ে পড়লে বরগুনা থেকে ঝালকাঠিতে ছুটে আসেন নুসরাতের বাবা ইসমাইল। তার সঙ্গে ছিল ভাই জলিলসহ পরিবারের স্বজনরা। সারাদিন খোঁজ করেও স্ত্রী’ ও মে’য়ের সন্ধান পাননি ইসমাইল।

 

নি’খোঁজ নুসরাতের চাচা জলিল বলেন, বরগুনার পরীরখাল এলাকায় বাড়ি আমাদের। নুসরাত আর ভাবি (রাজিয়া সুলতানা) আসবে বলে আম’রা অ’পেক্ষায় ছিলাম। তারা বৃহস্পতিবার যখন লঞ্চে উঠেন তখনো মোবাইলে জানায়, নুসরাত বাড়ি আসতেছে বেড়াতে। কিন্তু ওরা আর ফেরেনি। তারা এখন কোথায় আছে জানি না। পানিতে ডুবে গেছে, নাকি আ’গুনে ছাই হয়ে গেছে তাও জানি না।

 

কা’ন্না করতে করতে বার বার মূর্ছা যান ইসমাইল। আর পরিবারের বাকিরা শোকে পাথর। জলিল বলেন, নুসরাত খুব চটপটে মে’য়ে ছিল। বাড়ি আসলে পুরো বাড়ি মাতিয়ে রাখত। কিন্তু আমাদের অসহায় করে দিয়ে ওরা হারিয়ে গেল। প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) রাত ৩টার দিকে ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অ’ভিযান-১০ লঞ্চে আ’গুন লাগে। এতে এখন পর্যন্ত ৩৯ জনের ম’রদেহ উ’দ্ধার করা হয়েছে। নি’খোঁজ রয়েছেন শতাধিক। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতা’লে ৬৭ জন অ’গ্নিদ’গ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: