রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১০:২৩ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের চাবুক মারার প্রস্তাব

প্রকাশিতঃ শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ৯:৪২ পূর্বাহ্ন

মালয়েশিয়ায় অ’বৈধভাবে প্রবেশ করা অভি’বাসীদের চাবু’ক মা’রার প্রস্তাব (বে’ত্রাঘা’ত) নিয়ে দেশজুড়ে চলছে স’মালো’চনার ঝড়। বেশ কিছুদিন ধরেই দেশটিতে অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। সম্প্রতি, মালয়েশিয়ার বু’কিত আমান অভ্যন্তরীণ নিরাপ’ত্তা ও পাবলিক অর্ডার ডিরেক্টর হাজানি গাজালি বলেছেন, অভিবাসীরা বারবার আমাদের সীমা’ন্ত অতি’ক্রম করছে। তাদের ঠে’কাতে বে’ত্রাঘা’তের প্রস্তাব করেন তিনি।

 

এদিকে সরকারের নীতিনির্ধারকরা বলছেন, বিদেশিরা মালয়েশিয়ায় অ’বৈধভাবে প্রবেশ করতে হাজার হাজার রি’ঙ্গিত খরচ করেন। তারা গরিব নয়। মালয়েশিয়ার সাবেক মন্ত্রী পি ওয়েথা মুরথি পুলিশ কর্মকর্তার এ প্রস্তাবের সমা’লোচনা করে বলেন, ‘দরিদ্র শ্রমিক যারা নিছক সৎ জীবনযাপনের চেষ্টা করছেন’ তাদের চাবুক মা’রা যাবে না।

 

বে’ত্রাঘা’তের মতো শা’রীরিক শা’স্তি প্রাচীন যুগের। শ্রমিক শ্রেণিকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শক্তির প্রথম প্রবর্তন করা হয়েছিল। ব্রিটিশরা নিজের দেশে এমন মানহা’নিকর কাজ কখনই করেনি। অভিবাসীদের ওপর আর্থিক বোঝা চাপানো এবং তাদের দুর্বলতাকে কাজে লাগানোর বিষয়গুলো পুলিশের ত’দন্ত করা উচিত বলে মনে করেন, মালয়েশিয়ার অ্যাডভান্সমেন্ট পার্টির প্রধান ওয়েথা।

 

মালয়েশিয়ার সেপুতেহ এমপি তেরেসা কক বলেছেন, পুলিশের উচিত দুটি বিষয়ের সমাধান করা। কীভাবে অভিবাসীরা আমাদের সীমান্তে অবৈধভাবে প্রবেশ করছে এবং কীভাবে রিক্রুটিং এজেন্ট তাদের শোষণ করছে। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, আমরা আমাদের নিজেদের দুর্বল’তার আসল ইস্যু থেকে মনোযোগ না সরিয়ে আমাদের সীমানা পুরোপুরি সুরক্ষিত করা নিশ্চিত করি।

 

তিনি বলেন, মনে রাখতে হবে অভিবাসীরা মালয়েশিয়ার অর্থনীতিতে অবদান রাখেন। কারণ আমাদের নাগরিকরা ‘বিপজ্জনক, নোংরা-অবমাননাকর’ হিসেবে বিবেচিত। কাজ করতে চায় না। অনথিভুক্ত অভিবাসীদের চাবুক মারা একটি বর্বর কাজ যা মানুষের মর্যাদাকে ক্ষুণ্ন করে।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: