মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১১:৫২ অপরাহ্ন

জামাইকে রেখে পালালেন বিয়ে বাড়ির সবাই, একা ধরা পড়লেন বর

প্রকাশিতঃ শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

জামালপুরের মেলান্দহে বা’ল্যবিয়ে বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে বরকে ফেলে পা’লিয়েছেন বর ও কনের বাবা-মাসহ বিয়ে বাড়ির সকলে। শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার নাংলা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আ’দালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম।

পরে বা’ল্যবিয়ে দেবেন না মর্মে কনের চাচার কাছ থেকে মুচলেকা ও দুই হাজার টাকা জরিমা’না আদায় করে বিয়ে বন্ধ করা হয়। উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার নাংলা ইউনিয়নের একটি গ্রামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর (১৫) ধুমধাম করে বিয়ের আয়োজন চলছিল। স্থানীয় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া কিশোরীর জামালপুর সদর উপজেলার এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বরযাত্রী কনের বাড়িতে আসেন। বিয়ের আনু’ষ্ঠানিকতা প্রায় শেষ পর্যায়ে ছিল। এদিকে বা’ল্যবিয়ের খবর পেয়ে ইউএনও বিয়ে বাড়িতে এসে হাজির হন। ইউএনওর উপস্থিতি টের পেয়েই পা’লিয়ে যান বর ও কনের বাবা-মা। এ বিষয়ে মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সঠিক সময়ে গিয়ে বা’ল্যবিয়ে বন্ধ করি।

অ’ভিযান পরিচালনার সময় বর ছাড়া কাউকে পাওয়া যায়নি। পরে কনের চাচাকে দুই হাজার টাকা জরিমা’না করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বা’ল্যবিয়ে প্রতিরো’ধে উপজেলা প্রশাসন সব সময় মাঠ পর্যায়ে খোঁজ খবর রাখছে। বাল্যবিয়ে বন্ধে সমাজের সকল শ্রেণির মানুষের দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখা উচিত বলেও তিনি মনে করেন।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: