বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

পাকিস্তানে জুমার নামাজে বো’মা বি’স্ফোরণে নি’হত বেড়ে ৫৬, আহত ১৯৪

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ৪ মার্চ, ২০২২, ৪:২৮ অপরাহ্ন

পাকিস্তানে একটি মসজিদে জুমার নামাযের সময় আ’ত্মঘা’তী বো’মা হাম’লা হয়েছে। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনওয়ার রাজধানী পেশোয়ারের মসজিদে বি’স্ফো’রণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত ১৯৪ জন আ’হত হয়েছেন।

 

পেশোয়ারের কোচা রিসালদার এলাকার ওই মসজিদটিতে জুমার নামাজ চলার সময় এ বি’স্ফো’রণ হয় বলে পুলিশের বরাত দিয়ে জানিয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় দৈনিক ডন। লেডি রিডিং হাসপাতালের (এলআরএইচ) মুখপাত্র মোহাম্মদ আ’সিম হতাহ’তের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, আহ’তদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশ’ঙ্কাজনক।

 

খাইবার পাখতুনখাওয়া পুলিশের মহাপরিদর্শক মোয়াজ্জাম জাহ আনসারি বলেন, নিরাপ’ত্তার জন্য দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে মসজিদে মোতায়েন করা হয়েছিল। সেখানে দুজন ব’ন্দু’কধারী উপস্থিত হয়ে তাদের লক্ষ্য করে গু’লি চালায়। এ সময় একজন পুলিশ নি’হ’ত হন ও অপরজনের অবস্থা গু’রুতর। হাম’লাকা’রীদের ঠে’কাতে যাওয়া এক ব্যক্তির ওপর হাম’লা করে।

 

তিনি বলেন, হাম’লাকা’রীরা পাঁচ অথবা ছয় কেজির বি’স্ফো’রক উপাদানের মাধ্যমে এ হাম’লা চালিয়েছে। এ স্থানে হাম’লার বিষয়ে আগে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। পেশোয়ারের ক্যাপিটাল সিটি পুলিশ অফিসার (সিসিপিও) মোহাম্মদ ইজাজ খান ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হাম’লায় মসজিদের বাইরে একজন পুলিশ নি’হত হন।

 

তবে বি’স্ফো’রণস্থলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পেশোয়ারের এসএসপি অপারেশনস হারুন রশিদ খান বলেন, হাম’লায় দুই পুলিশ সদস্য নিহ’ত হয়েছেন। তিনি এই বি’স্ফো’র’ণকে আ’ত্মঘা’তী বিস্ফোরণ হিসেবে অভি’হিত করে বলেছেন, কোনো ‘হু’মকির সতর্কতা’ ছিল না।

 

খাইবার পাখতুনওয়ান সরকারের মুখপাত্র ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আলী সাইফ বলেন, মসজিদে নিরাপ’ত্তা একটি সাধারণ নিয়ম হিসেবে দেওয়া হয়েছিল। মসজিদটিতে জুমার দিনে জামাতে নামাজের সময় এ ধরনের ব্যবস্থা সবসময় নিশ্চিত করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শী শায়ান হায়দার জানান, যখন তিনি মসজিদে প্রবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তখনি শক্তিশালী একটি বি’স্ফোর’ণ তাকে রাস্তায় ফেলে দেয়। তিনি বলেন, যখন আমি আমার চোখ খুললাম, দেখি সর্বত্র ধুলো আর লা’শ।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: