বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১২:১০ অপরাহ্ন

২ লাখ বাংলাদেশি কর্মীর আবেদন যাচাই করছে মালয়েশিয়া

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ১০ মার্চ, ২০২২, ১২:১৭ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ায় উৎপাদন, বৃক্ষরোপণ, পরিষেবা, নির্মাণ ও কৃষিতে কর্মী নিয়োগে এখন পর্যন্ত ২ লাখ বাংলাদেশি কর্মীর আবেদন জমা পড়েছে, যা বর্তমানে যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে বলে জানান দাতুক সেরি এম সারাভানান। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানান এক বিবৃ’তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি জানান, প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হলে শ্রমিকদের সব খাতের জন্য অনুমতি দেওয়া হবে।

 

এ ছাড়া ইন্দোনেশিয়া থেকে বিদেশি গৃহকর্মী আনার বিষয়ে আগামী ১৭ মার্চ ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে সমঝোতা স্মা’রক (এমওইউ) স্বাক্ষর করার কথা রয়েছে। এদিকে, মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে এখন পর্যন্ত কা’রিগরি বিষয়গুলো চূড়ান্ত করতে পারেনি বাংলাদেশ। এমনকি মালয়েশিয়ায় প্রবেশে কর্মীদের অভিবাসন ব্যয় কত হবে, তা এখনো ঠিক করতে পারেনি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

 

গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর মালয়েশিয়ার সঙ্গে শ্রমবাজারসং’ক্রান্ত একটি সমঝো’তা স্মারক সই করে বাংলাদেশ। সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী কর্মী নেওয়ার বিমান ভাড়াসহ মালয়েশিয়া অংশের যাবতীয় খরচ বহন করবে নিয়োগদাতা। আর বাংলাদেশে পাসপোর্ট করা, মেডিকেল, কল্যাণ বোর্ড সদস্য ফিসহ আনুষ’ঙ্গিক খরচ বহন করবেন কর্মী। সেই সঙ্গে রয়েছে রিক্রুটিং এজেন্সির সার্ভিস চার্জ। এসব মিলিয়ে বাংলাদেশ অংশে একটি সম্ভাব্য খরচ নির্ধারণ করা হবে বলে সমঝো’তা সইয়ের পরই জানিয়েছিল প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

 

শ্রমবাজারটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের সংখ্যাও বেশ। তবে, কর্মী পাঠানোর পদ্ধতি ও খরচ এখনো ঠিক না হওয়ায় অ’নিশ্চয়তায় রয়েছেন অনেকে। কর্মপরিবেশ ও বেতন ভালো থাকায় এবং বাংলাদেশের সঙ্গে আবহাওয়া ও সংস্কৃতির মিল থাকায় বিদেশগামী কর্মীদের প্রথম পছন্দের দেশ মালয়েশিয়া। কিন্তু সমঝোতা স্মারক সইয়ের এতদিন পরও দেশটিতে যাওয়ার বিষয়ে পরিষ্কার ও বিস্তারিত তথ্য জানতে না পেরে ক্ষোভ ও হতাশার কথা জানিয়েছেন অনেক কর্মী।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: