শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২২ পূর্বাহ্ন

জনপ্রিয় গেম ফ্রি ফায়ার ও পাবজি বন্ধ হচ্ছে বাংলাদেশে

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১, ৬:৫১ অপরাহ্ন

ফ্রি ফায়ার ও পাবজির মতো জনপ্রিয় দুই গেম বন্ধ হচ্ছে বাংলাদেশে। এর আগে পাবজি সাময়িকভাবে ব’ন্ধ করা হলেও পরে আবার চালু করা হয়। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে এরইমধ্যে বিষয়টি নিয়ে সুপারিশ করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ সুপারিশ করা হয়েছে । বিষয়টি নিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতেও আলোচনা হয়। সেখানে ওই দুই গে’মের আ’স’ক্তি নিয়ে উ’দ্বে’গ জানানো হয়।

 

সম্প্রতি ফ্রি ফায়ার ও পাবজি নিয়ন্ত্র’ণে জরু’রি পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ওই দুটি গেম কিশোর-কিশোরী ও তরুণদের মধ্যে আ’স’ক্তি তৈরি করেছে। হঠাৎ করে বন্ধ করতে গেলে বি’রূ’প প্রতিক্রিয়া তৈরি করবে। তাই ধীরে সুস্থে বি’কল্প পদ্ধ”তিতে গেম দুটি বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হবে। যারা এ ধরনের গেমে আ’স’ক্ত তারা ভিপিএনসহ নানা বিকল্প উপায়ে গেমটি খেলতে পারবেন। আমরা সেসবও ব’ন্ধে পদক্ষে’প নেয়ার চেষ্টা করবো।

 

গেরিনা ফ্রি ফায়ার (ফ্রি ফায়ার ব্যাটলগ্রাউন্ডস বা ফ্রি ফায়ার নামেও পরিচিত) একটি ব্যাটল রয়্যাল গেম। ২০১৯ সালে এটি বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক ডাউনলোড করা মোবাইল গেম হয়ে উঠেছে। জনপ্রিয়তার কারণে, গেমটি ২০১৯ সালে গুগল প্লে স্টোর দ্বারা ‘সেরা জনপ্রিয় ভোট গেম’ এর জন্য পুরস্কার পেয়েছিল। ২০২০ সালের মে পর্যন্ত ফ্রি ফায়ার বিশ্বব্যাপী দৈনিক ৮০ মিলিয়নেরও বেশি সক্রিয় ব্যবহারকারীদের সঙ্গে একটি রেক’র্ড তৈরি করে। গেরিনা বর্তমানে ফ্রি ফায়ারের উন্নত সংস্করণে কাজ করছেন যা ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স নামে পরিচিত। গেমটি অন্য খেলোয়াড়কে ‘হ”ত্যা’ করার জন্য ‘অ”স্ত্র এবং সর’ঞ্জা’মের সন্ধানে একটি দ্বীপে প্যারাসুট থেকে পড়ে আসা ৫০ জন ও তার অধিক খেলোয়াড়কে অ’ন্তর্ভুক্ত করে। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের ক্রা’ইস্ট’চা’র্চে ব’ন্দু’ক দিয়ে মসজিদে মুসলমানদের ”হ’ত্যা’ এবং সেই দৃশ্য ফেসবুক লাইভের বিষয়টি অনেকেই পাবজির সঙ্গে তুলনা করেন। সম্প্রতি নেপালে পাবজি নি’ষি’দ্ধ করে দেশটির আদা’লত।

 

একই কারণে ভারতের গুজরাটেও এ গেম খেলার ওপর নি’ষেধা’জ্ঞা দেয়া হয়েছিল। এমনকি গেমটি খেলার জন্য কয়েকজনকে গ্রে’প্তা’রও করা হয়েছিল। অনলাইন গেম ‘প্লেয়ার আননোনস ব্যাটলগ্রাউন্ডস’ (পাবজি)। সমাজে এর নেতিবাচক প্রভাব ও শিক্ষার্থী- কিশোর-কিশোরীদের স’হিং’স করে তুলছে এমন আশঙ্কা থেকেই গেমটি বন্ধ করা উচিত বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। পাবজি গেমটির মোবাইল ভার্সনে একসঙ্গে অনেকজন মিলে অবতরণ হন এক যু’দ্ধ’ক্ষে’ত্রে। যতক্ষণ না পর্যন্ত একজন সিঙ্গেল সেনা বেঁ’চে’ থাকছেন যু’দ্ধে ততক্ষণ খেলে যেতে হয়।

 

২০১৮ সালে অ্যাঙ্গরি বার্ড, টেম্পল রান, ক্যান্ডি ক্রাশের মতো গেমগুলোকে পেছনে ফেলে সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন গেমের তালিকায় শীর্ষে জায়গা করে নেয় পাবজি। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মানবজমিনকে বলেন, বর্তমানে দেশে জনপ্রিয় তরুণ প্রজন্মের মাঝে ফ্রি ফায়ার ও পাবজি।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: