বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:১৭ অপরাহ্ন

মায়ের কবর খুঁড়ে অন্য জায়গায় নিলেন সন্তান

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১, ৪:৫২ অপরাহ্ন

মঠবাড়িয়ায় মায়ের কবর খুড়ে অন্যত্র পুনঃস্থাপন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃ’ষ্টি করেছেন মজিদ ফরাজী নামে ৬২ বছর বয়সের এক কৃষক। জানা গেছে, উপজে’লার তেতুলবাড়িয়া গ্রামের কৃষক মজিদ ফরাজীর মা ২০১৬ সালে ই’ন্তেকাল করেন। এরপর বাড়ি সংল’গ্ন দক্ষিণ তেতুলবাড়িয়া পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দা’ফন করা হয়। কিন্তু গত বছর পানি উন্নয়ন বোর্ড ক’র্তৃক দক্ষিণ তেতুলবাড়িয়া এলাকার মিরুখালী-সাফা খালের পারে বাঁধ নির্মাণের জন্য টেন্ডার আহবান করেন। এতে মজিদ ফরাজীর মায়ের কবর বাঁধের নিচে চা’পা পড়ে নিশ্চিহ্ন যাবে। এ খবর শোনার পর মজিদ ফরাজী মান’সিক ভাবে অ’স্থির হয়ে পড়েন।

 

মজিদ ফরাজী জানান, মায়ের কবর রক্ষার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন দ’প্ত রে ছোটাছুটি করি। কিন্তু তাদের কাছ থেকে কোন সন্তো’ষজনক উত্তর পাইনি। পরে এলাকাবাসী কবরের হাড্ডিগু’লো স্থা’নান্তরিত করে পুনরায় কবরস্থ করার জন্য বলেন। কিন্তু এতে মায়ের মায়ের আ’ত্মা ক’ষ্ট পাবে বলে আমি ওই প্রস্তাবে সাড়া দেইনি।

 

এক পর্যায়ে তিনি সমূলে মায়ের কবর তুলে অন্যত্র কবরস্থ করার সি’দ্ধান্ত নেন। পরে গত রমজান মাসে কোদাল ও খোন্তা নিয়ে কবরের চারপাশে খুড়ে পুরো কবরটিকে তিনি মূল মাটি থেকে আলাদা করেন। এরপর কবরের নিচে এক হাত খোড়ার পর একটা করে গাছের গু’ড়ি দেন। এভাবে ৬টি গাছের গু’ড়ির উপর কবরটি তুলে ফেলেন। আর এই অ’সাধ্য কাজটি করতে তিনি সময় নিয়েছেন মাত্র ২০ দিনের মতো। তাও আবার রমজান মাসে রোজা রেখে। একজন ৬২ বছরের বৃ’দ্ধ মানুষ রোজা রেখে কোন আধুনিক যন্ত্রপাতি ছাড়া শুধুমাত্র কোদাল ও খোস্তা নিয়ে এই দুঃসাধ্য কাজটি করে এলাকার মানুষকে তাক লাগিয়ে দেন।

 

পরর্তীতে তিন হাত চওড়া, পাঁচ হাত লম্বা ও তিন হাত পু’রু এই মাটির কবর সম্পূর্ণ ম্যানুয়াল প’দ্ধতিতে মোটা সুতা, সুপারি গাছ ও কাঠ দিয়ে এলাকাবাসীর সহায়তা মূল কবর থেকে ১২/১৫ হাত দূরে স্থা’নান্তর করেন। কৃষক মজিদ ফরাজীর মায়ের প্রতি এই অকৃত্রিম ভালোবাসার খবরটি তার অজান্তেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাই’রাল হয়ে গেছে। গত দুই দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কৃষক মজিদ ফরাজীকে স্যালুট জানাচ্ছেন হাজারও মানুষ। স্থানীয়রা জানান, কৃষক মজিদ ফরাজি এলাকায় সহ’জ সরল ও ধার্মিক মানুষ হিসাবে সকলের কাছে পরিচিত।

 

তেতুলবাড়িয়া গ্রামের বাসি’ন্দা ও মঠবাড়িয়া বন্দরের ব্যবসায়ী তানভীর হাফিজ জানান, মজিদ ফরাজীর মায়ের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসার খবর ফেসবুক দিতে জানেন না কবর খোড়ার সময় সেলফি তুলতে জানেন না কিংবা মা দিবসে মাকে উইশ করতেও জানেন না কিন্তু হৃদয়ের সবটুকু ভালোবাসা ও শক্তি উজাড় করে মাকে যে ভালোবাসতেন এটাই প্রমান। কৃষক মজিদ ফরাজী আরো জানান, আল্লাহ’র রহমত ও এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তার মায়ের কবর অন্যত্র পুনঃস্থাপন করতে পেরে তিনি মনে তৃ’প্তি পেয়েছেন।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: