শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন

সৌদি আরব থেকে সন্তানসহ ফিরলেন এক নারী, গৃহকর্তা সন্তানের বাবা

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ৮ জুন, ২০২১, ৫:৩৯ অপরাহ্ন

ভা’গ্য ফে’রানোর আশায় ২০১৯ সালের নভেম্বরে সৌদি আরব গিয়েছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের এক নারী। দেড় বছর পর ৬ মাসের ছেলে সন্তান নিয়ে মঙ্গলবার (৮ জুন) সকালে দেশে ফিরেছেন তিনি। ওই নারীর দাবি, সৌদি আরবে যে বাড়িতে কাজ করতেন সেই গৃহকর্তা তার সন্তানের বাবা। এখন এই সন্তানকে নিয়ে কীভাবে নিজের বাড়িতে যাবেন তা বুঝতে পারছেন না।

 

তিনি জানান, সৌদি আরব যাওয়ার পর থেকেই প্রতিনিয়ত ‘নি’র্যা’ত’নে’র শি’কার হতেন। এক পর্যায়ে তিনি অ’ন্তঃস’ত্ত্বা হলে পরে তাকে সফর জে’লে পাঠানো হয়। সফর জে’লেই জন্ম হয় আব্দুর রহমান নামের এই ছোট্ট শিশুটির। ভু’ক্তভো’গী নারী বলেন, আমার পরিবারের কেউ বিষয়টি জানে না। তাকে নিয়ে আমি পরিবারে ফিরতে পারব না। সমাজের লোকেরা ভালোভাবে নেবে না।

 

বিমানবন্দরে নেমেই কোনো উ’পায়’ন্তর না পেয়ে বিষয়টি জানান বিমানবন্দর আ’র্মড পুলিশের কাছে। এরপর সেখান থেকে এই নারীকে নি’রাপ’দ আশ্রয়ের জন্য হ’স্তান্ত’র করেন ব্র্যাক মাইগ্রশন প্রোগ্রামের কাছে। এই নারী বর্তমানে ব্র্যাক লার্নিং সেন্টারে অবস্থান করছেন। বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের অ’ভিবা’সন কর্মসূচি প্রধান শরিফুল হাসান বলেন, এই ধরনের ঘটনাটি ভী’ষণ দু’র্ভা’গ্য’জনক। তবে এই ঘটনাগুলোর সু’ষ্ঠু তদ’ন্ত হওয়া উচিত। সৌদি আরবের কোনো বাড়িতে তিনি কাজ করতে গিয়েছিলেন, তার নিয়োগকর্তাকে এগুলো ত’দন্ত হওয়া উচিত। প্রয়োজনে ডিএনএ টেস্ট করে স’ন্তানের পিতৃপরিচয় বের করা উচিত।

 

তিনি বলেন, এর আগে আমরা এই ধরনের ১২টি ঘটনা দেখেছি। তাদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু এই ধরনের অ’প্রত্যা’শিত ঘটনা যেন না ঘটে সে বিষয়ে আমাদের সোচ্চার ও নীতি নি’র্ধারক’দের দায়িত্বশীল ভূমিকা প্রয়োজন। এর আগে গত ২৬ মার্চ সৌদি আরব থেকে মা’ন’সিক ভার’সা’ম্য’ হারিয়ে সন্তান দিয়ে দেশে ফিরেছেন ঢাকা বিভাগের আরেক নারী।

 

তিনি সৌদি আরবের মক্কাস্থ কেন্দ্রীয় জেলে মা’নসি’ক ভার’সাম্যহী’ন অবস্থায় ছেলে সন্তান জন্ম দেন। গত ২ এপ্রিল নিজের না’ড়িছেঁ’ড়া বুকের মানিক আট মাসের শিশু সন্তানকে বিমানবন্দ’রে ফে’লেই চলে গেছেন সৌদি ফেরত আরেক মা। হয়তো-বা সেই মা’র পরিস্থিতি সন্তানের ফেলে যাওয়ার চাইতে পরিবার বা সমাজে খা’রা’প।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: