বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:২৫ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ায় ইমিগ্রেশন পুলিশের অভিযানের সময় ৩০ তলায় উঠে প্রবাসীর মৃত্যু

প্রকাশিতঃ রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১, ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন

মালয়েশিয়ায় গত কয়েকদিন ধরে অ’বৈধ অভিবা’সীদের ধরতে চলছে ইমিগ্রেশন বিভাগ ও পুলিশের যৌথ চিরু’নি অভি’যান। এ অভি’যান গতকাল শনিবার দামানসারা এইচটিভি টোল এলাকার পাশে নির্মানধীন উঁচু ভবনে পরিচালনা করা হয়। অভি’যানের সময় শারীরিক অবস্থার অবন’তি হওয়ায় সোহেল রানা নামের এক প্রবাসীর মৃ’ত্যু হয়েছে।

 

এসময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ভবনটির প্রধান ফ’টকে আসলে দ্রুত খবর ছড়িয়ে পড়লে কর্মরত শ্রমিকরা আ’ত্মর’ক্ষার জন্য পা”লানোর চেষ্টা করেন। এদের মধ্যে সোহেলও ভবনের নিচ তলা থেকে ৩০ তলায় উঠেন আত্মর’ক্ষার জন্য। পরে পুলিশ ও ইমিগ্রেশন চলে গেলে ৩০ তলা থেকে নেমে পানি পান করার সাথে সাথে মৃ’ত্যুবরণ করেন সোহেল।

 

বৈধ কাগজ না থাকায় মৃ’ত সোহেল রানার ঠিকানা সংগ্রহ করতে বেগ পেতে হয়েছে। সোহেল রানার ভিসা না থাকায় শরীয়তপুরের এক বন্ধুর ভিসার ক’পি ব্যবহার করে এই প্রজেক্টে কাজ করত। পরবর্তীতে অনেক খোঁ’জ খবর নিয়ে জানা যায় সোহেল রানার বাড়ি চাঁদপুর জেলায়। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার বিস্তারিত ঠিকানা জানা যায়নি ।

 

নির্মানাধীন ভবনে সোহেল রানার সাথে আরও কাজ করতেন জায়েদুল ইসলাম। সোহেল রানার মৃ’ত্যু ও ইমিগ্রেশন অভিযান সম্পর্কে সত্যতা যাচাই করতে জায়েদুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘গতকাল শনিবার স্থানীয় সময় আনুমানিক সকাল ১১.৪০ মিনিটে আমাদের প্রজেক্টে ইমিগ্রেশন পুলিশ অভি’যানে আসলে খবর পেয়ে আমরা নি’রাপদ আশ্রয়ে চলে যাই। আমাদের সাথে থাকা সোহেল রানা ও কয়েকজন দৌড়ে ৩০ তলার উপরে উঠেন।

 

তিনি আরও জানান, ‘ইমিগ্রেশন মেইন গেইটে ১৫/২০ মিনিট অবস্থান করে চলে যায়। এসময় সোহেল রানা ও কয়েকজন সেই ৩০ তলা থেকে নিচে নেমে আসে পায়ে হেঁটে। ৩য় তলায় কেন্টিনে এসে পিপাসা মেটাতে পানির বোতল ক্রয় করেন। ২য় তলায় বাসার সামনে এসে পানি পান করার সাথে সাথে বমি করা শুরু করলে ওখানেই মৃত্যু হয় তার। পরবর্তীতে নিকটস্থ পুলিশ স্টেশন থেকে পুলিশ এবং ডাক্তার এসে চেক করে মৃ’ত ঘোষণা করে লাশ নিয়ে যায়।’


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: