শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:২০ অপরাহ্ন

কিশোর নেই মনে হলেই ভেতরটা হাহাকার করে ওঠে: হানিফ সংকেত

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১, ৭:৪৯ পূর্বাহ্ন

প্লেব্যাক সম্রাট বলা হয় এন্ড্রু কিশোরকে। চলচ্চিত্রের রাজপটে সুর ছড়ানো এ গায়ক গত বছরের এই দিনে (৬ জুলাই) না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। চলচ্চিত্র বা অ্যালবাম নয়, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’তেও নিয়মিত পাওয়া যেত এন্ড্রু কিশোরের দ’রাজ গলার গান। কাজের সূত্রে অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক-পরিকল্পক-পরিচালক হানিফ সংকে’ত ছিলেন তার বন্ধু।

 

 

আজ এই প্রয়াণ দিবসে বন্ধুকে ভো’লেননি এই মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। এন্ড্রু কিশোরকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করেছেন স্মৃতিচারণ। তিনি লেখেন, ‘দেখতে দেখতে একটি বছর হয়ে গেলো কিশোর নেই। বিশ্বাস করতে মন চায় না, অথচ এটাই সত্যি। এন্ড্রু কিশোর-বাংলা গানের ঐশ্বর্য।

 

যার খ্যাতির চাইতে কণ্ঠের দ্যু’তি ছিলো বেশি। যার কাছে গানই ছিলো জীবন-মর’ণ, গানই ছিলো প্রাণ। এই গানের জন্যই কিশোর পেয়েছে প্লেব্যাক সম্রাটের উপা’ধি। গানের জন্যই মানুষ তাকে ভালোবাসতো। অবশেষে মর’ণব্যা’ধি ক্যা’নসা’রের সঙ্গে দীর্ঘ লড়াইয়ে পরাজিত হয়ে গত বছরের এই দিনে সবাইকে কাঁ’দিয়ে পৃথিবী ছেড়ে বিদায় নেয় সবার প্রিয় এন্ড্রু কিশোর।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘কিশোর যেমন প্রাণ খুলে দরাজ গলায় গাইতে পা’রতো, তেমনি মানুষের সঙ্গেও প্রাণ খুলে মিশতে পারতো। সবসময় নিজের সুবিধার চাইতে অন্যের সুবিধার দিকেই দৃ’ষ্টি ছিলো তার বেশি। কিশোরের সঙ্গে আমার সম্প’র্ক প্রায় ৪০ বছরের। একসঙ্গে অনেক আড্ডা দিয়েছি, বহুবার বিদেশে গেছি, একসঙ্গে থেকেছি।

 

কিশোর ছিলো ইত্যাদি’র প্রায় নিয়মিত সংগীতশিল্পী। কিশোর নেই মনে হলেই ভেতরটা হাহাকার করে ওঠে। এন্ড্রু কিশোর ছিলো একজন আদর্শ শিল্পী, একজন মানবিক মানুষ। যার তুলনা সে নিজেই। কিশোর তার গানের মাধ্যমেই বেঁচে থাকবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে। বন্ধু যেখানে থাকো ভালো থেকো। শান্তিতে থেকো।’


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: