শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩০ অপরাহ্ন

৩ দিন থেকে ৭ দিন হবে কোয়ারেন্টাইন, নেগেটিভ রিপোর্ট এলে পাঠানো হবে বাড়িতে

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১, ২:৪৮ অপরাহ্ন

কাতারসহ বিদেশফেরত যাত্রীদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কো’য়ারেন্টা’ইনের মেয়াদ আবারও কমানো হচ্ছে। ১৪ দিনের বদলে তাদেরকে তিনদিন থেকে সাতদিন কো’য়ারেন্টা’ইনে রেখে ক’রো’না টেস্ট করে নে’গেটি’ভ পেলে হোম কো’য়ারেন্টা’ইনে পাঠিয়ে দেয়া হবে।বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) রাতে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক বৈঠকে প্রাথমিকভাবে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ একাধিক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন আগামী দুই-একদিনের মধ্যে জারি হতে পারে। নির্ভরযোগ্য একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

 

সম্প্রতি সরকার দেশ-বিদেশে আট’কেপড়া প্রবাসীদের কর্মীদের বিভিন্ন দেশে ফিরে যেতে এবং প্রবাসী কর্মীদের দেশে ফিরিয়ে আনতে বিশেষ ফ্লাইট চালু করেছে। যারা ফিরছেন তাদেরকে বাধ্যতামূলকভাবে ১৪ দিনের কো’য়ারেন্টা’ইনে থাকার শর্ত বেঁধে দেয়া হয়েছিল। গত কয়েকদিনে ক’রো’না নে’গে’টিভ সনদ নিয়ে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, কাতার ও ওমান থেকে দুই হাজারেরও বেশি যাত্রী ফেরত আসেন। তাদেরকে রাজধানীর আশকো’না হজ ক্যাম্প ও উত্তরা দিয়াবাড়ির কো’য়া’রেন্টা’ইন সেন্টারে পাঠানো হয়। নে’গেটি’ভ সনদ নিয়ে ফিরে আসা যাত্রীরা তাদের কো’য়ারে’ন্টাইনে রাখার ফলে ক্ষু’ব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

 

নাম প্রকাশ না করে স্বাস্থ্য অধিদফতরের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘রমজানের ঈদকে সামনে রেখে অসংখ্য প্রবাসী দেশে ফিরতে চাইছেন। তাদের অনেকে আগাম টিকিটও কে’টে ফেলেছেন। বিশেষ করে প্রবাসী কর্মী যারা কোম্পানি থেকে কয়েকবছর পর পর ফ্রি টিকিট পান তারা নির্ধারিত টিকিটে দেশে ফিরতে না পারলে তাদের টিকিট বা’তিল হয়ে যায়। এ কারণে গত কয়েকদিনে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীর সংখ্যা ছিল অনেক বেশি।’ তিনি বলেন, ‘এদিকে রাজধানীতে যে দুটি কো’য়ারে’ন্টাইন সেন্টার রয়েছে সে দুটিতে মাত্র দুই হাজার লোকের প্রাতিষ্ঠানিক কো’য়ারে’ন্টাইনে থাকার সুবিধা রয়েছে। ইতোমধ্যেই সেই কোটাও পূরণ হয়ে গেছে। এখন থেকে যারা ফিরবেন তাদেরকে নিজ খরচে সরকার নির্ধারিত আবাসিক হোটেলে বাধ্যতামূলক কো’য়ারে’ন্টাইনে থাকতে হবে। প্রবাসী কর্মীদের অধিকাংশ প্রতিদিন চার-পাঁচ হাজার টাকা খরচ করে কো’য়ারেন্টা’ইনে থাকতে অপারগতা প্রকাশ করে তাদের কো’য়ারেন্টা’ইনের দিন সংখ্যা কমানোর অনুরোধ জানান।’

 

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বৃহস্পতিবার রাতে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক বসে। বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা শেষে কো’য়ারেন্টা’ইনের দিনক্ষণ কমানোর সিদ্ধান্ত হয়। এক্ষেত্রে কো’য়ারে’ন্টাইন ১৪ দিনের বদলে পাঁচদিন কিংবা সাতদিন করা হতে পারে বলে আ’ভাস পাওয়া গেছে। সূত্র আরও জানায়, যাদের ক’রো’নার দুটি ভ্যা’কসি’ন নেয়া আছে এবং করোনা নে’গে’টিভ সার্টিফিকেট আছে, তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কো’য়ারে’ন্টাইন লাগবে না। তারা হোম কো’য়ারেন্টা’ইনে থাকবেন। আর যাদের ক’রো’না ভ্যা’কসিনে’র একটি ডোজ নেয়া আছে এবং ক’রো’না নে’গে’টিভ সার্টিফিকেট রয়েছে তাদের তিন দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কো’য়ারে’ন্টাইন পাঠানো হবে। এরপর ক’রো’না টেস্ট করানো হবে। তাতে নে’গে’টিভ রি’পো’র্ট এলে বাকি ১১ দিন বাড়িতে গিয়ে কো’য়ারেন্টাইনে থাকবেন।প্রসঙ্গত, এর আগেও বিদেশফেরত যাত্রীদের দাবির মুখে বাধ্যতামূলক কো’য়ারেন্টা’ইনের মেয়াদ সাতদিন করা হয়েছিল।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: