শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৯:১৭ পূর্বাহ্ন

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী প্রবেশে নতুন নিয়ম ঘোষণা

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৯:২৪ পূর্বাহ্ন

ক’রো’না সং’ক্র’মণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মীদের প্রবেশে আর কোনো বা’ধা থাকছে না। তুলে নেয়া হচ্ছে এ সং’ক্রা’ন্ত নিষেধা’জ্ঞা। ফলে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের বিদেশি কর্মীরা। তবে নতুন বিদেশি কর্মীদের প্রবেশে দেশটিতে প্রবেশে বা’ধ্যতা’মূলক ৭ দিনের প্রা’তিষ্ঠানি’ক কো’য়ারে’ন্টাইনে থাকার নি’র্দেশ’না জা’রি করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজা জাইনউদ্দিন।

 

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানের সঙ্গে এক যৌথ বৈ’ঠকের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বিদেশি কর্মীদের শুধুমাত্র কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং কেএলআইএ-২ হয়ে দেশে প্র’বেশ করতে পারে। এছাড়া এসব বিদেশি কর্মীদের সাবাহ এবং সারাওয়াকে প্রবে’শের অনুমতি দেওয়া হবে যা পরে সি’দ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 

এর আগে গত ৩ অক্টোবর মালয়েশিয়ার শিল্প, বৃক্ষরোপণ ও পণ্যমন্ত্রী দাতুক জুরাইদা কামারুদ্দিন জানিয়েছেন অ’ক্টোবর থেকে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশিসহ প্রায় ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী আসবে মালয়েশিয়ায়। দেশটির বৃক্ষরো’পণ খাতের ঘাটতি দূর করতেই মূলত বিদেশি কর্মীদের নিয়ো’গ দেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মতো দেশে থাকা কর্মীরা সবাই তাদের কো’ভি’ড-১’৯ টি’কা নেওয়া সম্পন্ন করেছেন। আমাদের স্থানীয় নাগরিকরা বৃক্ষরো’পণ কাজে আগ্রহী না হওয়ায় আমরা বিদেশি কর্মীদের নিয়ো’গ দিচ্ছি। আমাদের বিশ্বাস স্থানীয়রাও ধীরে ধীরে এ কাজে পারদর্শী হয়ে উঠবে।

এছাড়া দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় (এমওএইচআর) স্ট্যান্ডিং অর্ডার অব অপারেশন (এসওপি) খসড়া করেছে এবং কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (কেএলআইএ) কাছে একটি বিদেশি শ্রমিক কো’য়ারেন্টা’ইন সেন্টার তৈরি করেছে। যেখানে একসঙ্গে দুই হাজার শ্রমিক থাকতে পারবে। দেশটিতে পাম-অয়েলসহ বাগান খাতে জনবলের ঘাট’তি রয়েছে, তা দূরীকরণে মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় একমত পোষণ করেছে। রোপণ খাতে শ্র’মিকের অভাব জাতীয় আয়ে ক্ষ’তির ঝুঁ’কি তৈরি করেছে যা বছরে ২০ বিলিয়ন রিঙ্গিত, বিশেষ করে পাম-অয়েল খাতে।

এদিকে, দেশটিতে করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ প্রায় ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে দেশটির অর্থনীতির চাকা সচল করতে ১৫ নভেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে লংকাউই দ্বীপমালার সব পর্যটন খাত পরীক্ষামূলকভাবে ৩ মাসের জন্য বিদেশি ভ্রমণপিপাসুদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকোব।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: