রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

সুমি আমার কাছে থাকলে এমন হতো না: ৩ লাশের পাশে লেখা

প্রকাশিতঃ শনিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২১, ১২:৪২ অপরাহ্ন

বসতঘরে পড়ে আছে শাশু’ড়ি ও পুত্রবধূসহ এক যুবকের নি’থর দেহ। লাশের পাশে ঘরের দেয়ালে লেখা, ‘এমনটা হতো না, যদি সুমি আমার কাছে থাকতো। এই সবকিছুর জন্য সুমির বাবা দা’য়ী। একই ঘরে যুবক, শাশুড়ি ও পুত্রবধূর লা’শ এবং দেয়ালের লেখার কারণে এটিকে হ’ত্যাকা’ণ্ড হিসেবে দেখছে পুলিশ। সেই সঙ্গে হ’ত্যাকা’ণ্ডটি মো’ড় নিয়েছে বি’বাহবহি’র্ভূত সম্প’র্কের দিকে।

 

শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে উপজেলার দিগড় ইউনিয়নের কাশতলার খামারপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে তাদের লা’শ পাওয়া যায়। নিহতরা হলেন ওই গ্রামের সৌদিপ্রবাসী জয়নুদ্দিনের স্ত্রী সুমি আক্তার (২৫), জয়নুদ্দিনের মা জমেলা বেগম ও শাহজালাল ইসলাম সোহাগ (৩০)। শাহজালাল কালিহাতী উপজেলার সাতুটিয়া পূর্বপাড়া এলাকার সোহরাব আলীর ছেলে। এ ঘটনায় গুরু’তর আ’হত অবস্থায় জয়নুদ্দিনের ছেলে শাফিকে (৩) উ’দ্ধার করে হাসপাতালে পা’ঠানো হয়েছে।

 

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জে’রে শাহজালাল দুই নারীকে হ’ত্যা করে আ’ত্মহ’ত্যা’র পথ বেছে নেয়। বিষয়টি নিয়ে চা’ঞ্চল্যের সৃ’ষ্টি হয়েছে। দিগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ মামুন বলেন, ‘শাহজালালের সঙ্গে সুমির বিবাহব’হির্ভূত স’ম্পর্ক ছিল। প্রায় ছয় মাস আগে শাহজালালের সঙ্গে সুমি পা’লিয়ে গিয়েছিল। শুনেছি তারা বিয়েও করেছিল। পরে সুমির স্বামী বিদেশ থেকে ফিরে তাকে বাড়িতে নিয়ে এসেছিল। এরপর সুমির স্বামী বিদেশে চলে যান। হ’ত্যাকা’ণ্ড নিয়ে এলাকায় চাঞ্চ’ল্যের সৃষ্টি হয়েছে।’

টাঙ্গাইলের র‌্যাব-১২ সিপিসি-৩ এর কোম্পানি কমান্ডার লে. আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘’লা’শের পা’শে ছুরি ও হা’তুড়ি পাওয়া গেছে। সিআইডির ক্রাইম সিনের টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিবাহবহির্ভূ’ত সম্প’র্কের জে’রে হ’ত্যাকা’ণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি।’

 

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মো. কায়ছার বলেন, ‘ট্রি’পল মা’র্ডা’রের রহ’স্য উদঘা’টনের জন্য সাক্ষ্যপ্রমাণ সংগ্রহ প্রক্রিয়াধীন। সাক্ষ্যপ্রমাণ হাতে পেলে মতামতের জন্য বিশেষজ্ঞদের কাছে পাঠাবো। মতামত আসার পরই আমরা বিস্তারিত জানাতে পারবো। তখন নিশ্চিত করে বলতে পারবো হ’ত্যাকা’ণ্ডে’র রহ’স্য। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, ঘটনাটি বিবা’হবহি’র্ভূত সম্পর্কের জে’রে ঘটেছে।’

 

দেয়ালের লেখার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘দেয়ালে লেখাটি কে লিখেছে এটি আমরা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি। আমরা যা’দের স’ন্দেহ করছি, তাদের লেখা বাড়ি থেকে সংগ্রহ করেছি। এই লেখার সঙ্গে মিলিয়ে আমরা বলতে পারবো, কে লিখেছে। বিষয়টি নিয়ে তদ’ন্ত চলছে।’


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: