মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১০:০৯ অপরাহ্ন

মুশফিকের শাস্তি চান নায়ক রুবেল

প্রকাশিতঃ রবিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২১, ৯:৪৮ পূর্বাহ্ন

ঢাকাই ছবির এক সময়ের জনপ্রিয় নায়ক রুবেল ক্রিকেট নিয়ে বা’ক বিত’ণ্ডায় জ’ড়িয়ে পড়লেন আরেক অভিনেতা মিশা সওদাগরের সঙ্গে। শুক্রবার কমিউনিটি পুলিশের একটি প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। খেলা শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি কয়েকজন চিত্রতারকা। কথা বলছিলেন চিত্রনায়ক রুবেল। রুবেল বলেন, সারা জাতি তাদের দিকে তা’কিয়ে থাকে। তাদের প্রতি সম’র্থকেরা আশা আ’কা’ঙ্ক্ষা নিয়ে থাকে। আর তারা যদি জেনে শুনে আ’ত্মাহু’তি দিয়ে আসেন তাহলে আমরা এটা ভালোভাবে মেনে নেব না।

 

এমন কথা বলার পরই মাইক্রোফোনের সামনে ত’র্কে জড়ান রুবেল মিশা। এ সময় রুবেলকে ল’ক্ষ করে মিশা বলেন, আমাদের দল বিশ্বকাপে খেলতেছে এটা সম্মানের, কী হইছে ভু’ল এটা কিন্তু সম্মানের না। আমি সকলের কাছে অনুরো’ধ করছি যারা অনেক আবেগ’প্রবণ, আমরা হা’র পরাজয় মানি না। ওরা খেলতেছে এটাই বড় কথা। যাদের সঙ্গে খেলতেছে ওরা র‍্যা’ঙ্কিঙে অনেক এগিয়ে। সো ওরা খেলতেছে ওদেরকে আমরা কুৎ’সা বা গা’লম’ন্দ না করি।

 

এই কথার তী’ব্র প্রতি’বাদ করেন রুবেল। তিনি বলেন, মিশার কথার সঙ্গে দ্বি’মত পো’ষণ করছি। ওরা যদি খেলতে গিয়ে গিয়ে জেনে শুনে আ’ত্মাহু’তি দেয় তাহলে হা’ন্ড্রেড পার্সেন্ট আমরা মেনে নেব না। আমি পার্টিকুলারলি একজনের নাম বলতে চাই। এর আগে সুই’প করতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হয়েছেন, রিভার্স সু’ইপ করতে গিয়ে এলডব্লি’উ হয়েছেন। তিনি কি করলেন সর্বশেষ খেলায়, চরম একটা সময় যখন, তিনি করলেন স্কুপ’। আমি মনে করি এটা জেনে শুনে আ’ত্মাহু’তি। আমরা এটা শা করতে পারি।

 

এ কথার সময় মিশার সঙ্গে উচ্চ’স্বরে কথা হয়ে যায়। মিশা এগিয়ে এসে কথা বলতে শুরু করলে রুবেল থামিয়ে নিজের কথার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে উচ্চ’গ্রামে চলে যান। এরপরে মিশা কথা বলতে শুরু করেন। মিশা বলেন, মুশফিক এই স্কু’প খেলেই সবচেয়ে বেশি রান এনেছেন এবং জিতিয়েছে বাংলাদেশকে… মিশার কথার মাঝেই রুবেল চি’ৎকার করে বলেন এবং হা’রিয়েছে, এবং হা’রিয়েছে। সর্বশেষ খেলায় কী হয়েছে সেটা দেখবো আমরা।

 

এক সাক্ষাৎকারে রুবেল মনে করেন তারকাদের সমা’লো’চনা গ্রহণের ক্ষমতা থাকতে হবে, ‘আমার মাঝে মাঝে মনে হয়, উনারা সমালো’চনা নিতে পারে না। কিন্তু উনাদের নিতে পারা উচিত। উনারা যখন ভালো রেজাল্ট করে, তখন আমরা দেশ ও জাতি উনাদের অনেক কিছু দেই। কিন্তু আমি আগেও বলেছিল আবারও বলছি, উনারা যখন আ’ত্মঘা’তী কাজ করবে; রবীন্দ্রনাথের ভাষায় জেনে শুনে বি’ষ পান করবে; তখন তাদের শা’স্তির আওতায় আনা উচিত।

 

তারা জিতলে পরে যখন তাদের সবকিছু দিচ্ছি, গাড়ি-বাড়ি টাকা-পয়সা সব দিচ্ছি; আমি জেনেশু’নে যখন একটা দেশকে ডু’বিয়ে দিচ্ছি, এমন খেললে আমাদের ক্ষ’তি হবে, সেখানে আপনাদের কী বিচার আছে? আমরা তো কিছু করছি না। কেন? আমরা শুধু তাদের দিয়েই যাব, তারা যা খুশি খেলবে সেটা তো হবে না। রুবেল যে মুশফিকুর রহিমের ওপর ক্ষি’প্ত রুবেল তা স্প’ষ্ট বোঝা যাচ্ছিল।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: