বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
আচার বলে বিমানবন্দরে ব্যাগে ঢুকিয়ে দিলো প্যাকেট, সৌদি গিয়ে জেলে প্রবাসী প্রেম নিয়ে গুঞ্জন, নায়িকা বললেন ‘সৃজিত আমার বাবার মতো’ রাস্তায় ঘুরে চুড়ি-ফিতা বিক্রি করছেন নায়িকা মৌসুমী হাতিরঝিলে নতুন সংসার শুরু করলেন অপু বিশ্বাস, চাইলেন দোয়া মালয়েশিয়া প্রবাসীদের পোস্ট অফিস থেকে যেভাবে পাসপোর্ট নিতে হবে মালয়েশিয়ায় রিক্যালিব্রেশনে আবেদনকারীরা কোম্পানির অফিসেই করতে পারবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট মায়ের সামনে আগুনে পুড়ে মরলো শেকলবন্দি কলেজছাত্র! বিমানবন্দরে ১ সপ্তাহের মাঝে নমুনা পরীক্ষা শুরু, মূল্যও কমবে কুয়েত মোবারক আল-কাবির থেকে ৮০ জন গ্রেফতার! দুর্দান্ত জয়ের ম্যাচে ১২ লাখ রুপি জরিমানা দিল মোস্তাফিজদের অধিনায়ক

বিদেশের মাটিতে মির্জা ফখরুলের জ্যৈষ্ঠ কন্যা শামারুহ’র অনন্য অর্জন!

প্রকাশিতঃ শনিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২১, ১০:১২ পূর্বাহ্ন

অস্ট্রেলিয়ায় বহুভাষী স’ম্প্রদায়ের মধ্যে মান’সিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সচে’তনতা সৃষ্টিতে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের জ্যেষ্ঠ কন্যা মির্জা শামারুহ। তার এই ব্যতিক্রমী কার্যক্রমের জন্য এবিসি ক্যানবেরা রেডিও ক’তৃক কমিউনিটি স্প্রীট এওয়ার্ডস এর ফি’নালি’স্ট তালিকায় রয়েছেন তিনি। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ এ চুড়ান্ত বিজয়ী ঘোষণা করা হবে উল্লেখ করে রেডিও এবিসি ক্যানবেরা তাদের ওয়েবসাইটে লিখেছেন, Shamaruh is a Multicultural Community Champion finalist for ABC Canberra’s Community Spirit Awards — winners will be announced on Thursday 9 September 2021!

 

‘সি’তারা’স স্টোরি’ নামের একটি অলাভজনক সংগঠনের ব্যানারে স্বে’চ্ছাসেবী এই সংগঠনের শুরুটা হয়েছিলো বাংলাদেশে কিশোরীদের সাহায্য করার ল’ক্ষ্য নিয়ে ২০১৭ সালে। তবে অস্ট্রেলিয়ায় থাকার সুবাদে এর কার্যক্রম সেখানেই বিস্তৃ’তি লাভ করে শামারুর হাত ধরে। মুলতঃ নারীদের মা’নসিক স্বাস্থ্য নিয়ে ২০১৭ সাল থেকে কাজ করে ‘সিতারা’স স্টোরি’, তবে সম্প্রতি এই কর্মসূচিতে নারীদের পাশাপাশি পুরুষদেরও অ’ন্তর্ভু’ক্ত করা হয়েছে বলে জানা গেছে ।

 

কিভাবে তাঁর সংগঠন ‘সিতারা’স স্টোরি’ বহুভাষী সম্প্রদায়ের মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে স’চেত’নতা সৃষ্টিতে কাজ করছেন সেসব বিষয় নিয়ে সম্প্রতি এসবিএস বাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি । ডঃ শামারুহ মির্জা বলেন, ‘সিতারা’স স্টোরি’ অস্ট্রেলিয়ান সরকারের বিভিন্ন সংগঠনের সহায়তায় কাজ করে থাকে যার মধ্যে আছে নারীদের মানসিক ও শারী’রিক স্বাস্থ্য এবং কিশোরীদের ব’য়ঃস’ন্ধিকালীন মানসিক স্বাস্থ্য।

 

তিনি জানান, অভিবাসীরা নারীরা বিশেষ করে যারা নতুন এসেছেন তারা ভাষা ও সংস্কৃতিগত বাধার কারণে মানসিক চা’পে ভোগেন এমন অভিবা’সীদের মান’সিক স্বাস্থ্য সং’ক্রা’ন্ত যেসব সুবিধাগুলো আছে সেই তথ্য পৌঁছে দিতে কাজ করছে তার সংগঠনটি। তিনি বলেন, ভাষাগত সমস্যার কারণে অভিবাসী নারীরা একাকিত্ব বোধ করে, কারো সাথে মেলামেশা করতে পারে না এবং পারিবারিক সহিংসতার শিকার হয়। এছাড়া সাংস্কৃতিক কারণে তাদের মান’সিক স’মস্যা নিয়ে কথা বলতে ল’জ্জাবোধ করে।


More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
error:
error: